সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০
দেশজুড়ে ডেস্ক
২৯ জুন ২০২০
৬:৫৪ অপরাহ্ণ
বগুড়ায় যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ৪৩ সে.মি উপরে
বগুড়ায় যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ৪৩ সে.মি উপরে

২৯ জুন ২০২০ ৬:৫৪ অপরাহ্ণ

 

ষ্টাফ রিপোর্টার

গত কয়েক দিনের বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে বগুড়ার সারিয়াকান্দি পয়েন্টে যমুনা নদীতে পানি ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নদী এলাকার বাসিন্দারা অন্যত্র চলে যাচ্ছে। তাদের গৃহপালিত প্রাণীসহ উচুঁ স্থানে চলে যাচ্ছে। বিপদসীমার ৪৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে শুরু করেছে পানি। এই রিপোর্ট লেখা চলাকালিন সময়েও পানি নদীতে বেড়ই চলেছিল। 

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকালে যমুনা নদীর পানি আরো বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৪৩ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে পানি বৃদ্ধির। ফলে চরাঞ্চলে চালুয়াবাড়ী, কর্নিবাড়ী, কুতুবপুর, চন্দনবাইশা, কাজলা কামালপুর ও সারিয়াকান্দি সদর ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলের সবজি, পাট, বর্ষালী ধানসহ উঠতি ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। হঠাৎ পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নদী তীরবর্তী মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুতি নিয়েছে। 

বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার চালুয়াবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত আলী জানান, পানি বৃদ্ধির ফলে ওই ইউনিয়নে ভাঙনের আশংকা করা হচ্ছে। ভাঙনের কবলে পড়ায় ইতোমধ্যে শতাধিক বাড়ীঘর অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে, এছাড়াও ইউনিয়নের বহুলাডাঙা কমিউনিটি ক্লিনিক, আাউচারপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কাকালিহাতা এলাকার বেশ কিছু নদীসীমানা স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। পানি বৃদ্ধির ফলে কি পরিমান ফসল ডুবে গেছে তা এখনই বলতে পারছে না কৃষি বিভাগ। 
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান জানান, চরাঞ্চলে কিছু জায়গায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। তবে নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্পে কোথাও কোন ভাঙন নেই। রবিবার সকালে যমুনার পানি সারিয়াকান্দি পয়েন্টে বিপদসীমার ৪৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

সম্পর্কিত খবর