শনিবার, আগস্ট ৮, ২০২০
দেশজুড়ে ডেস্ক
২৯ জুন ২০২০
৯:১২ পূর্বাহ্ণ
স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও উন্নয়নের ছোয়া নেই সাদুল্যাপুরের ইদিলপুর ইউনিয়নের গ্রামীণ কাঁচা রাস্তাগুলোর
গাইবান্ধাজেলার সাদুল্যাপুর উপজেলার ইদিলপুর ইউনিয়ন যেন এক অবহেলিত ইউনিয়ন

২৯ জুন ২০২০ ৯:১২ পূর্বাহ্ণ

আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:- গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুর উপজেলার ৭নং ইদিলপুর ইউনিয়নের গ্রামীণ কাঁচা রাস্তাগুলো বর্ষা মৌসুম আসলে বেহাল দশায় পরিণত হয়। স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি ওই ইউনিয়নের কাঁচা রাস্তাগুলোর এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। সরকার আশে সরকার যায় কিন্তু ইদিলপুর ইউনিয়নের কাঁচা রাস্তাগুলোর উন্নয়নে আজ পর্যন্ত কোনো সরকারই পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। বর্ষা মৌসুম এলে ইদিলপুর ইউনিয়নের কাঁচা রাস্তাগুলোতে রিক্সা-ভ্যান, অটো, বাইসাইকেল, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে চলাচল করা একেবারেই অসম্ভব হয়ে পড়ে। প্রতিদিন কষ্ট করে পায়ে হেটে পাশ্ববর্তী পলাশবাড়ী কালীবাড়ি হাটে ও সাদুল্যাপুরের ধাপেরহাটে প্রয়োজনের তাগিদে যেতে হয় অসংখ্য মানুষকে। শুকনো মৌসুমে প্রায় সবরকম যানবাহন নিয়ে চলাচল করতে পারলেও বর্ষা মৌসুমে জুতা পায়ে দিয়ে চলাচল করা দায় হয়ে পড়ে অত্র ইউনিয়নের জনসাধারণকে। সরেজমিনে পলাশবাড়ী টু কাঁঠাল লক্ষীপুর যাওয়ার রাস্তাটি চলাচলের ক্ষেত্রে হয়ে পড়েছে অযোগ্য। গত কয়েকদিনের টানা ও থেমে থেমে বৃষ্টিতে রাস্তায় জমে গেছে বিভিন্ন জায়গা কাঁদা। যার কারণে অটোভ্যান, মোটরসাইকেল ও বাইসাইকেল নিয়ে ওই রাস্তাটিতে চলাচলে সৃষ্টি হয়েছে জনদুর্ভোগ। অত্র ইউনিয়নের গ্রামীণ কাঁচা রাস্তাগুলোর বর্তমান অবস্থা স্বচক্ষে না দেখলে বুঝতে পাড়বেন না বর্ষা মৌসুম আসলে কতটা অসহায় এই ইউনিয়নের মানুষগুলো। গত ২৭ জুন শনিবার পলাশবাড়ী কালীবাড়ি হাটে আসা ইদিলপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্কুল শিক্ষক এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমরা ইদিলপুর ইউনিয়নবাসী কি অপরাধ করেছি যে আমাদের পলাশবাড়ী টু কাঁঠাল লক্ষীপুর যাওয়ার রাস্তাটি স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও পাকাকরণ করা হয় না। আমরা কি মানুষ নই! আমরা কি সরকারকের নাগরিগ নই। তিনি দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বলেন, আমাদের বর্ষা মৌসুমে পায়ের স্যান্ডেল হাতে নিয়ে আসতে হয়? আমি ৩১-গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্যাপুর) আসনের মাননীয় এমপি এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপির সু-দৃষ্টি কামনা করছি। এমন অসংখ্য অভিযোগ ইদিলপুর ইউনিয়নবাসীর। যে প্রশ্নগুলোর উত্তর সংবাদ মাধ্যমের কাছে নেই। অত্র ইউনিয়নের প্রায় ২০ কিলোমিটার রাস্তাগুলো এখনও কাঁচা। যার কারণে প্রতি বর্ষা মৌসুমে এ ইউনিয়নবাসীর ব্যাপক দূর্ভোগ পোহাতে হয়। ইদিলপুর ইউনিয়নবাসী স্থানীয় মাননীয় সংসদ সদস্য, সাদুল্যাপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, জেলা প্রশাসকসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট এই জনদূর্ভোগ থেকে রক্ষা পেতে জরুরী সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

 

সম্পর্কিত খবর