সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০
কোভিড১৯ ডেস্ক
২৭ জুন ২০২০
১১:০৫ পূর্বাহ্ণ
একটি জরুরি সচেতনতা মুলক আলোচনা ::=

২৭ জুন ২০২০ ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ


করোনা ভাইরাস নিয়ে গত ৫মাস থেকে গবেষনা ,আলোচনা চলছে । আমিও গত তিন মাসে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে যতটুকু সচেতনতার জন্য প্রয়োজন অন্তত: ১২টি ভিডিও করে বলেছি ও লিখেছি । এখন তেমন কোন কথা বলা প্রয়োজন মনে করিনা । এখন বহু নিবেদিতপ্রাণ চিকিৎসক এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিগন বিভিন্ন মিডিয়ায় সচেতনতামূলক আলোচনা করছেন এবং তা যথেষ্ট মনে করি যদি মনোযোগ দিয়ে সেগুলো সবাই শোনেন এবং মানেন । অনেক কৃতজ্ঞতা সেইসব চিকিৎসকদের প্রতি যারা স্বপ্রনোদিত ভাবে মানব কল্যাণে সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষকে সচেতন করে যাচ্ছেন । আজ বহুদিন পর মনে হচ্ছে একটি বিষয়ে কথা বলা দরকার যা ঘরের বাহিরে চলাচলের ক্ষেত্রে আমরা অধিকাংশরাই মানছিনা । জীবন বিজ্ঞান বা এমপিএইচ এর ছাত্র হিসেবে নয় একজন সচেতন ব্যক্তি হিসেবে আমি বিষয়টি জরুরি মনে করছি ।বাহিরে বা লোকালয়ে বা যেখানে ভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি থাকতে পারে নিজের প্রতিরক্ষার জন্য তিনটি জিনিস কঠোর ভাবে ঢাকতে হবে । * মূখ *নাক এবং চোখ । কারণ ভাইরাস এই তিন পথ দিয়ে মানুষের শরীরে মুলত: প্রবেশ করে । তার মানে এমন মাস্ক পড়তে হবে যাতে নাক ও মুখ কঠোর ভাবে ( আমি কঠোর শব্দটি ব্যবহার করছি কারণ মাইক্রোবায়োলজির গবেষকরা তাই বলছেন) ঢাকা থাকতে হবে । সেই সাথে চোখ কঠোর ভাবে প্রোটেক্ট করতে হবে । অনেকে রিডিং গ্লাসকে (পড়া ও দেখার জন্য যে চশমা ব্যবহার করি) যথেষ্ট মনে করছেন কিন্তু এটি যথেষ্ট নয় বলে আমি মনে করি সেটা শুধু পড়লে কঠোর প্রোটেক্ট হবে না । আজকাল ট্রান্সপারেন্ট প্লাসটিকের চশমা প্রায় সব খানেই পাওয়া যাচ্ছে একশত টাকা বা দেড়শত টাকা দাম। আমিও সংগ্রহ করতে বাধ্য হয়েছি । যা দুইপাশ দিয়েও চোখ ঢাকা থাকে । কারণ উপায় নাই চোখ বাঁচাতে গেলে পড়তে হবে । কিন্তু দু:খজনক রাস্তা ঘাটে অনেকে চশমাই পড়ছেন না-- মারাত্মক ভুল কাজ হচ্ছে । অনেকে glass shield কে সঠিক মনে করছেন । ফ্রান্ট লাইন করোনা যোদ্ধাদের জন্য সেটি মুলত:বাধ্যাতামুলক । হ্যান্ডগ্লাফস সবার জন্য নয় বলে অনেক গবেষক মনে করছেন কারণ হ্যান্ড সেনিটাইজার দিয়ে যখনি প্রয়োজন তখনি হাত পরিস্কার করা দরকার বা সুয়োগ পেলেই হাত ধুয়ে নিতে হবে হ্যান্ডগ্লাফস পড়া থাকলে আপনি তা সহজে পারবেন না । ফলে গ্লাফস দিয়ে মোবাইল ধরা, চাবি বা শরীরের অন্য কিছু টাচ করা বিপদজনক । সোজা কথা নাক মুখ চোখ কঠোর ভাবে ঢাকা থাকতে হবে যতদিন করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) থাকছে বা টিকা আবিষ্কার না হচ্ছে । পড়ে থাকতে কষ্ট হবে যন্ত্রনা হবে খরচ হবে কিন্তু উপায় কি । পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে। আজকে থেকে অবশ্যই নিয়ম মেনে চলার অনুরোধ করছি । ঘর থেকে বাহির হবার সময় নিরাপত্তার দুয়াটি পড়ে বাহির হবার অনুরোধ করছি ,আমিও তাই করি কারণ রাসুল (সা: ) ঘর থেকে বের হওয়ার সময় এ দোয়া পড়তে বলেছেন- উচ্চারণ : ‘বিসমিল্লাহি, তাওয়াক্কালতু আলাল্লাহি, ওয়া লা হাওলা ওয়া লা কুওয়্যাতা ইল্লা বিল্লাহ।’ (তিরমিজি, আবু দাউদ) । শয়তান খুব হতাশ হয় কেউ এই দুয়া পড়ে ঘর থেকে বাহির হলে কারণ শয়তান তখন সেই ব্যক্তির ক্ষতি করতে পারে না ।সুতরাং করোনা মোকাবেলায় এটি একটি অস্ত্র । সর্বশেষ কথা হলো * অতি প্রয়োজন ছাড়া কোন অবস্থায় ঘর থেকে বার না হওয়া * বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় প্রতিদিন যে পরামর্শ দিচ্ছে তা মেনে চলা *এবং নিজের সর্বাত্মক নিরাপত্তা নেবার পর আল্লাহ’র উপর ভারসা রাখা । অসচেতনতার কারণে প্রতিটি মৃত্যু সারা জীবন আমাদেরকে বেদনায় আপ্লুত করবে । সবার সুস্বাস্থ্য ও কাল্যাণ কামনা করি
মো.আলমাসুর রহমান
Counsellor, Mind Gym
East West University
২৩/০৬/২০

সম্পর্কিত খবর