শনিবার, আগস্ট ৮, ২০২০
লেখালেখি ডেস্ক
২ জুলাই ২০২০
৮:৫৯ অপরাহ্ণ
মানসিক শক্তি বজায় রাখতে একটি জরুরি বিষয়
মানসিক শক্তি বজায় রাখতে একটি জরুরি বিষয়

২ জুলাই ২০২০ ৮:৫৯ অপরাহ্ণ


         আমরা যা কিছু দেখি আমাদের চোখ ক্যামেরার লেন্সের মত ক্লিক হয়ে ব্রেনের মেমোরিতে রেকর্ড হয়ে যায় , ঠিক তেমনি যা কিছু শুনি( মুলত: মনোযোগ দিয়ে) তা ব্রেনের মেমোরিতে রেকর্ড হয়ে যায় এই সকল ছবি বা কথা অনেক কিছুই আমরা সারা জীবন মনে করতে পারি । যদিও সবাই রেকর্ড থাকে । ভালো বিষয়গুরো সুখ বা শক্তি দেয় , খারাপ বিষয়গুলো হতাশা বা কষ্ট দেয় । কথাগুলো এ জন্য নতুন করে বলা যে বর্তমানে সংক্রামিত কোভিড ১৯ যখন তখন অনেকেরই হয়ে যেতে পারে যেহেতু সামাজিক সংক্রমন হয়ে গেছে আমরা অধিকাংশরাই লকডাউন মানি নাই যদিও আমার বহু পরিচিতরা রয়েছেন যারা শতভাগ লক ডাউন মনে চলছেন তাদের অস্থিরতা বা খারাপ লাগছে চিন্তা লাগছে তারপরও । তবে অধিকারাই মানছেন না । সরকারের বারংবার অনুরোধ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর অনুরোধ আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষ এসবকে গুরুত্ব দেন না । যাইহোক যা বলছিলাম । তারমানে এই রোগে যে কেউ যখন তখন আক্রান্ত হতে পারেন । সুতরাং প্রস্তুতি রাখা ভালো । নিজেকে শারীরিক ও মানসিক ভাবে শক্তিশালী রাখতে হবে । সচেতন ব্যক্তিরা নিয়মিত ভালো থাকার উপায় নিয়ে খবর রাখছেন নিশ্চয় । যতদুর সম্ভব পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহন সেই সাথে বাড়ীতে যতদুর সম্ভব ব্যায়ম করা এবং মানসিক শক্তি রাখা, যদিও এটি একটি কঠিন কাজ ।, ব্যবসা বা চাকরির কাজগুলো যদি বসায় বসে অনলাইনে করা যায় তো খুবই ভালো । এ কাজে যদি ঘরের বাহিরে যেতে হয় প্রস্তুতি নিয়ে যেতে হবে । আর যারা একদম ঘরে থাকছেন ভালো খবর রাখা ভালো উদ্দীপনাময় বই পড়া , হাদিস কোরআন নামাজ রোজায় মনোযোগ দেয়া আত্মীয় স্বজনদের সাথে সময় দেয়া কমবেশী সবাই বিষয়টি জানেন । কিন্তু সমস্যা হলো মানসিক শক্তি বজায় রাখতে একটি বিশেষ দিকের আলোকপাত করবো সেটা হলো , শুরুতে যে কথা বলেছিলাম এই রোগে শতকরা ৮০ ভাগের বেশী মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেন কিন্তু শতকরা তিন বা চার জনের মৃত্যুর বিষয়টি যদি কেউ বেশী করে এবং নিয়মিত বর্ননা শুনেন বা খবর নেন , কিভাবে হটাৎ করে, কিভাবে তিনি চলে গেলেন এটার বনর্নায় যে কেউ কষ্ট পাবেন , ভীষন মন খারাপ হবে এবং কথাগুলো বা বনর্নাগুলো আমাদের ব্রেনে মেমোরিতে রেকোর্ডেড হয়ে থাকবে , তখন কোন কারণে জ্বর ,গলা ব্যথা হলে ৮০ ভাগ মানুষ সুস্থ হচ্ছে সেটা মনে না হয়ে মেমোরি থেকে খালি মনে হবে আমি বোধ হয় ঐ ভাবেই চলে যাবো যা পড়েছি বা শুনেছি তখন মানসিক শক্তি বজায় রাখা কঠিন হয়ে পড়বে, যদিও মানসিক শক্তি বজায় রাখার ক্ষেত্রে জেনেটিক্যাল ফ্যাক্টর একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার । কেউ জন্ম থেকে মনের দিক দিয়ে শক্তিশালী কেউ একদম উল্টো । যতই আপনাকে চিকিৎসক, বন্ধু বা আত্মীরা বলুক ভয় পাবেন না তারপরও মনে নেতিবাচন চিন্তা আসতেই থাকবে । সমস্যা হবে । জেনেটিক্যাল ব্যাপারটা তো মানুষের হাতে নাই । সেটা সম্ভব সেটা হলো মর্মান্তিক, মন খারাপ হওয়া খরব না শুনা না দেখা । চিকিৎসক বা গবেষকরা বিষয়টি শুনুন জানুন এ নিয়ে গবেষনা করুক । নিজ আগ্রহে মর্মান্তিক বর্ননা শুনে বা দেখে মনে কষ্ট বরংবার সৃষ্টি করে নিজেকে কষ্ট না দেয়া থেকে দুরে থাকার চেষ্টা করতে হবে , যেমন (লকডাউনের পরপরই সম্ভবত: নোয়াখালিতে একটি পারিবারিক হত্যাকান্ড লাইভ অনেকে বোধ হয় দেখেছেন বা সেয়ার করেছেন তারা কোনদিনও এ ঘটনা ভুলতে পারবেন না যা তাদের মানসিক ট্রমা সৃষ্টি করবে । আমি যখন বুঝেছি এটা কি হতে পারে তখনই এড়িয়ে গেছি , দেখার প্রশ্নই আসেনা । যারা দেখেছেন এবং দেখিয়েছেন তারা জীবনব্যাপী কমবেশী ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন এবং হবেন )।– সুতরাং মর্মান্তিক ,ভয়ঙ্কর,ভীতিকর সংবাদ পড়া বা শুনা যাবে না । যারা বলেন বা সেয়ার করেন তাদের এড়িয়ে চলেন । পজিটিভ মানুষদের সাথে থাকুন । বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতিতে যতদুর সম্ভব নেতিবাচক মর্মান্তিক বিষয়গুলো এড়িয়ে যেতে হবে । বিশ্ব পরিস্থিতির খবর রাখতে হবে , বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা শুনতে হবে । দেশের সরকারের নির্দেশনা মেনে চলতে হবে । ভালো থাকার সুস্থ্য থাকার উপায়গুলো জানতে হবে । সচেতন থাকতে হবে ।
আল্লাহ উপর ভরসা রাখতে হবে । আল্লাহ কাছে ভুলের ক্ষমা চাইতে হবে। আল্লাহ পরম করুনাময় দয়াময়, ক্ষমাশীল । আল্লাহ'র ৯৯ নামের মধ্যে ৯৮ নামই ক্ষমা , দয়া মায়া মমতার । সুতরাং তিনি আমাদের ভালো রাখবেন এই ভরসা রাখতে হবে । ভালো থাকবেন । সবার অনেক কল্যাণ কামনা করি ।
মো.আলমাসুর রহমান
Counsellor, Mind Gym
East West University

সম্পর্কিত খবর