সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০
জাতীয় ডেস্ক
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
৩:০৩ অপরাহ্ণ
বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালনে সরকারের নতুন নির্দেশনা
বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালনে সরকারের নতুন নির্দেশনা-thetopnews24.com

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৩:০৩ অপরাহ্ণ

বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবসগুলো কীভাবে পালন করতে হবে সে বিষয়ে নতুন করে নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আলোকে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ‘জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপন/পালন’ সংক্রান্ত পরিপত্র জারি করেছে। একইসঙ্গে ২০১২ সালের ৭ নভেম্বর জারিকৃত এ সংক্রান্ত পরিপত্র বাতিল করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের পরিপত্রে দেখা যায়, আগের মতই সবগুলো দিবসকে তিনটি শ্রেণিতে রাখা হয়েছে। ‘ক’ শ্রেণিতে থাকা ১৮টি দিবসকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন বা পালন করা হবে।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, ‘খ’ শ্রেণির ৩৪টি দিবসের মধ্যে যেসব দিবস ঐতিহ্যগতভাবে পালন করা হয়ে থাকে অথবা বর্তমানে দেশের পরিবেশ সংরক্ষণ, উন্নয়ন ও সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণের জন্য বিশেষ সহায়ক, সেসব দিবস উল্লেখযোগ্য কলেবরে উদযাপন/পালন করা যেতে পারে।

‘খ’ শ্রেণির দিবসের অনুষ্ঠানে মন্ত্রীরা সম্পৃক্ত থাকবেন এবং এ ধরনের অনুষ্ঠানের গুরুত্ব বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। এ পর্যায়ের অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য সরকারি উৎস থেকে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ করা যেতে পারে।

‘গ’ শ্রেণিতে থাকা ৩৩টি দিবস নিয়ে পরিপত্রে বলা হয়েছে, বিশেষ খাতের প্রতীকী দিবসগুলো সীমিত কলেবরে উদযাপন/পালন করা হবে। মন্ত্রীরা এসব দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিতির বিষয় বিবেচনা করবেন। উন্নয়ন খাত থেকে এসব দিবস পালনের জন্য কোনো বিশেষ বরাদ্দ দেওয়া হবে না।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ জানায়, তিন ধরনের দিবস ছাড়াও বিভিন্ন মন্ত্রণালয় বা বিভাগ ও সংশ্লিষ্ট দফতরগুলো আরও কিছু দিবস উদযাপন/পালন করে থাকে, যেগুলো গতানুগতিক ধরনের।

এ নিয়ে পরিপত্রে বলা হয়েছে, সরকারিভাবে গৃহীত কোনো কর্মসূচি যাতে অফিসের কার্যক্রমে ব্যাঘাত না ঘটায়, তা নিশ্চিত করতে হবে এবং আলোচনা বা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ছুটির দিনে অথবা অফিস সময়ের পরে আয়োজনের চেষ্টা করতে হবে।

কোনো দিবস বা সপ্তাহ উদযাপন/পালন উপলক্ষে রাজধানীর বাইরে থেকে বা জেলা পর্যায় থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঢাকায় আনা যথাসম্ভব পরিহার করার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

সম্পর্কিত খবর