মঙ্গলবার, আগস্ট ৪, ২০২০
খেলাধুলা ডেস্ক
২৪ জুলাই ২০২০
২:২০ অপরাহ্ণ
আমার থেকে অন্যদের শিক্ষা নেওয়া উচিত-সাকিব আল হাসান
এখন আমার থেকে অন্যদের শিক্ষা নেওয়া উচিত-সাকিব আল হাসান-thetopnews24.com

২৪ জুলাই ২০২০ ২:২০ অপরাহ্ণ

তরুণ বয়সে দলের নেতৃত্ব পেয়ে অনেক ভুল করেছেন বাংলাদেশ অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সেই ভুল থেকে অনেক শিক্ষাও নিয়েছেন তিনি। পরিণত সাকিব আবার ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব গোপন করে নিষিদ্ধ হয়েছেন। বড় এই ভুল থেকেও শিক্ষা নিয়েছেন দেশসেরা ক্রিকেটার। এছাড়া এখন তিনি দুই সন্তানের বাবা। সাকিব জানান, তিনি তাই অনেক বেশি পরিণত। এখন কম ভুল করার চেষ্টা করবেন তিনি।

সাকিব আল হাসান আইসিসির দুর্নীতি দমন নীতির তিনটি ধারা ভেঙেছেন। সময় মতো আইসিসিকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাবের কথা জানাতে ব্যর্থ হন তিনি। তবে আগামী ২৯ অক্টোবর শেষ হবে তার এক বছরের নিষেধাজ্ঞা। শাস্তির মেয়াদ শেষ হতেই সাকিব জাতীয় দলে ফেরার জন্য ঈদের পর ইংল্যান্ডে শুরু করবেন অনুশীলন। নিজের ভুলের জন্য ভক্ত-সমর্থকদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী সাকিব স্বীকার করেন, তার মতো ক্রিকেটারের এমন ভুল মানায় না।

ক্রীড়া বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম ক্রিকইনফোর ‘ক্রিকভাজে’ সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার দ্বিপ দাশগুপ্তার সঙ্গে আলাপে সাকিব তার নিষেধাজ্ঞা নিয়ে বলেন, ‘যা হওয়ার হয়ে গেছে। মানুষ ভুল করতে বাধ্য। কেউ শতভাগ সঠিক না। গুরুত্বপূর্ণ হলো ওই ভুল থেকে শক্তভাবে ফিরে আসা। অন্যদের ভুল না করার পরামর্শ দেওয়া।’

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে দেশের হয়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করা এই অলরাউন্ডার মনে করেন, ক্যারিয়ারে তিনি অনেক ভুল করেছেন। ২০০৯ সালে যখন তিনি প্রথম অধিনায়ক হয়েছেন, তখনও ভুল করেছেন। বেশি কিছু বিতর্কে জড়িয়েছেন। মিডিয়া সামলাতে পারেননি। প্রধান নির্বাচকের সঙ্গে মত পার্থক্য হয়েছে। অনেক সময় ভক্তরাও তাকে ভুল বুঝেছে। তবে এখন আগের থেকে ভুল অনেক কম করবেন বলে আশাবাদী সাকিব। কারণ এখন দুই কন্যার বাবা সাকিব অনেক বেশি পরিণত।

সাকিব জানান, ভুলটা অন্য কারো সঙ্গেও হতে পারতো, আমি তখন তার থেকে শিক্ষা নিতাম। ঘটনাটা আমার সঙ্গে ঘটেছে। এখন আমার থেকে অন্যদের শিক্ষা নেওয়া উচিত। আমি আকসুর সঙ্গে আলাপে প্রথম দিন থেকেই সৎ ছিলাম। তাদের কোন প্রশ্নের উত্তর লুকাইনি। সবকিছুর সোজা-সাপ্টা জবাব দিয়েছি। কারণ ভুলটা আমারই ছিল।’

সাকিবের ভাষ্যে, ‘অবশ্যই আমি চেষ্টা করবো, আমার ভুলের সংখ্যা কমিয়ে আনার। প্রথম নেতৃত্ব যাওয়ার পরে আমি বিয়ে করেছি। আমার দুটি বাচ্চা হয়েছে। এখন জীবন এবং খেলাটা আমি অনেক ভালো বুঝি। ২০ বছরের সাকিবের চেয়ে এখনকার সাকিব অনেক বেশি ঠান্ডা মাথার। নিজেকে আমি অনেক পরিবর্তন করেছি। এখন আমাকে মানুষ খুব বেশি ভুল করতে দেখবে না। আমার দুই মেয়ে আমার জীবন পুরোপুরি বদলে দিয়েছে।’

সম্পর্কিত খবর